কবিতার বই: কালিকাপ্রসাদে গেলে আমি যা যা দেখতে পাবো (২০০৫)

বুক কাভার বাই নঈম তারিক।

আরেকটু হইলেই বিখ্যাত হইয়া যাইতে পারতো আমার প্রথম বইটা; ২০০৫ সালে যখন ছাপা হইছিল তখন প্রথম আলো’র সাহিত্য সাময়িকী তরুণদের ১০টা বই বাছাই করতো, ওইখানে নাম নাকি প্রায় চইলাই আসছিলো; বিচারকদের ৫জনের ৩জন নাকি পছন্দ করছিলেন আর ২জন পছন্দই করেন নাই, তো গোপন ভোটাভুটিতে হাইরা গিয়া আর বিখ্যাত হইতে পারে নাই। আমি পরে গোপনে এই খবর পাইছিলাম। এখন এইটারে গাঁজাখুরি গল্প কইলে আমার প্রমাণ করার কোন উপায় নাই। সো, এই ইনর্ফমেশনরে জাস্ট একটা সাত্বনার কথা হিসাবেই পড়তে পারেন।

তো, বিখ্যাত না হইলেও পুরান ফ্রেন্ডদের সাথে দেখা হইলে অরা আমারে এই বইটার কথা-ই জিগায়। মানে, ওইখানে মাইরা ফালাইয়া রাখছে আমারে; কেউ কেউ নিয়মিত বিরতিতে, দীর্ঘশ্বাস গোপন কইরা জিগানও যে, “বইটা কি আর পাওয়া যায় না, কোথাও?”

শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটের নিচতলায় জনান্তিকে এখনো ফার্স্ট এডিশনের ৪০/৫০ কপি থাকার কথা। ২০১৪ সালে ছাপানো সেকেন্ড এডিশনের প্রায় সব কপি তো আছেই। এরপরে যাতে বই না কিইনা পড়া যায় এইজন্য ই-বুক আর অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপও বানানো হইছে। মানে, কবিতা কেউ না পড়ুক, কিন্তু ‘বাংলা কবিতার হারাইয়া যাওয়া মূল্যবান বই’ যাতে না হয় সেইটার পুরা ট্রাই আমি করছি।

প্রতিবছর একবার কইরা জানাবো বইলা এখন পোস্ট লিইখা ফেসবুকেও শেয়ার দিয়া রাখতেছি।

যেইভাবে এই বই বিখ্যাত হইতে পারে নাই, একইভাবে আশা করি রেয়ারও হইতে পারবে না।

পুরান ফ্রেন্ডদের পাশাপাশি নতুন রিডারদের কাছেও দোয়া চাইয়া রাখলাম।

 

ইবুক: http://bit.ly/28Z5QeV

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ: http://bit.ly/1PF4W86

 

আরো পড়তে পারেন

সুদূরতম পাইন
পাইন, দীর্ঘ বাতাস তোমারে আলোড়িত করে। কান্নায় আর কেঁপে কেঁপে ওঠা আলোগুলি মুগ্ধ চোখ নিয...
নিয়তি ও কালোপাখি
নিয়তির সাথে খেলতে নামছি;   আমারে মকারি করতেছে প্রকৃতি   অথচ এই কথা তুমি বিশ্বাস ...
আর্টিস্ট
আমি ঘুমাইয়া যাওয়ার পর চিল আইসা নিয়া যাইতে পারবে তো আমার কান!
কবিতা: জুলাই, ২০১৯
রেইনবো ভণিতার লগে পথ হাঁটলাম, বললাম, "বৃষ্টির পরে রাস্তায় হাঁটতে আরাম..." ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *