কবিতা: মে, ২০২০

দুপুর
মাইলের পর মাইল
মা ই লে র প র মা ই লছ ড়া য়া যা ই তে ছে

নি র ব তা


মা
দে

রইদ আইসা বসে থাকতেছে
খালি রাস্তার উপর

যদি আর ফিরা না আসো

য দি আ র ফি রা না আ সো

বইলা এ ক লা এ ক টা আ কা শে



ড়া

যা ই তে ছে

এ ক টা

চিল।

 

জোকস
আমি দেখি, তুমি হাসো কিনা?
তোমার হাসি ঝইরা পড়ে কিনা, বিকালবেলার
রইদের মতন
গাছগুলার পাতার উপরঝির ঝির কইরা তারা
বাজতে থাকে কিনা
একবার, আর অনেকক্ষণ…

আর
যদি তা না-ই হয়,
জোকস কি আর হইলো এইটা?

দুনিয়াতে আমাদের এই বাঁইচা থাকা,
খামাখাই তো তখন; মরা কিছু
মেটাফরের মতন, মিনিংয়ের ভিতরেই
আটকায়া ছিল যেন,
একটু সময়

Continue reading

কবিতা: এপ্রিল, ২০২০

জুতা কাহিনি

জুতাগুলা পইড়া আছে,
দরজার বাইরে, সিড়ির পাশে
জুতাগুলা আছে…

বাইরেটাও আছে, কয়েকজন মানুশ হাঁটতেছে…

বৃষ্টি আসতেছে, দৌড়াইতেছে এখন মানুশগুলা

জুতাগুলা হাসতেছে…

অদের ভিতর থিকা ভেসে আসতেছে
রাস্তার আওয়াজ, ধুলাবালির ঘ্রাণ
ফুটফেটিশের সিনড্রোম…pullquote] [/pullquote]

সকালবেলা

পাতার উপর আঁকা
ছোট্ট একটা বাতাস
এর মতন একা

দেখা যায় না তারে
পাখি ভাবে, হায়
আমি উড়তেছি
তাইলে কেমন
করে!

পাতার উপর আঁকা
একটা রইদের কণা
কাঁপতেছে
তির তির

বলতেছে,
জীবন আছে
দেখার ভিতর
একটা না-দেখা

ভাসতেছে বাতাসে
হাসতেছে রইদে

আঁকা বাঁকা
রাস্তাটার মতন
মিথ্যা সত্য
সত্য মিথ্যা

হেঁটে যাইতেছে
একা একা

অনেকগুলা চড়ুই
কিচিরমিচির
করতেছে

বলতেছে
মিথ্যা এইটা!
মিথ্যা এইটা!

বাতাসটা চুপ
রইদটা স্থির

চড়ুইগুলা
উইড়া
চলে গেলে
বুঝা যায়

সমস্ত কথাই
মিথ্যা,
সত্যের ইশারা।

Continue reading

কবিতা: মার্চ, ২০২০

নতুন বসন্ত

কি সুন্দর বিকাল!

ঘুম থিকা উইঠা
গা-ঝাড়া দিয়া
নতুন একটা হাড়ের খোঁজে
বাঘের মতন
হাঁইটা যাইতেছে

একটা রাস্তার কুকুর…

 

নিউ বসন্ত

প্রেমে-পড়া পাখিটা
জানালার গ্রিলে বইসা
টবের ফুল-গাছটারে বলতেছে,
“তুমি একটু আমার প্রেমে তো পড়তে পারতা!”

এই কথা শুইনা,
ফুল-গাছটা শরীর দোলায়া, বসন্ত-বাতাসে
হাইসা উঠলো তখন;
আর পাখি’টা থতমত, উইড়া গেল

সকালের সুন্দর রইদের ভিতর।

 

Continue reading

কবিতার বই: একটা চিন্তা থিকা একটা উদাহারণের মতন আলগা হয়া গেলাম আমি

এই কবিতাগুলা সেপ্টেম্বর,২০১৭ থিকা ফেব্রুয়ারি,২০১৯, এই সময়ে লেখা।

 

>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>

 ফ্রিডম ।। দুপুরবেলা ।। রাইটার্স ব্লক ।। জুতা ।। বিনয় মজুমদার ।। পুরানা লিরিকস ।। ঘুরতেছে, একটা দুপুরবেলা ।। তুমি হাসলা ।। একটা চড়ুই ।।  দেখি ।। না-থাকা ।। ডেভিড ফস্টার ওয়ালেস ।। বটগাছ ।। ইনসেইন ।।  ডোপামিন ।।  হেলাল হাফিজ ।। মাসকান্দা বাসস্ট্যান্ড ।। আমি তোমার করলার ফুল ।।  সকাল ।। তালশহর ।। কোন একটা ইউরোপিয়ান সিনেমা ।। কোন এক মফস্বলে, সন্ধ্যাবেলা… ।।  আমি একটা পুরানা গান ।।  ইয়েস্টারডে ।। কাঁটা ।।  তুমি আমারে বুঝাইতেছো ।।  দেজা ভ্যু ।।  সাবজেক্ট ।। আমার ভুল ।। মর্নিং জ্যাজ ।। ডিম্পল ।। একটা চিন্তা থিকা একটা উদাহারণের মতন আলগা হয়া গেলাম আমি ।।  পর্ণোগ্রাফিক ।। দুপুরের বার।। সমাপ্ত ।। একটা পাত্থর ।।

>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>

 

 

ফ্রিডম

চলো মাছ, অন্য পুকুরে যাই

 

দুপুরবেলা

একটা ইলিশ মাছ কিনলাম আমরা

আমাদের বিল্ডিংয়ের উপর দিয়া বিকট শব্দ কইরা বিমান উইড়া গেলো

তারপর কয়েকটা চড়ুইয়ের ডাকাডাকির ভিতর
দুপুর চইলা আসলো ঘরে,
ঘুমায়া পড়লাম আমরা

বাইরে, কি যে রইদ!

উড়তেছিলো পাতা, ছিঁড়া কাগজ, নগন্য একটা দুইটাকা…

সিলিং ফ্যানটা ঘুরতেছিলো, একলা

আশ্বিন মাস,
রাস্তায় তাও আছে প্যাকঁ-কাদা

‘অইখানে থাইমেন না, অইখানে থাইমেন না…’
বলতে বলতে রিকশাটা থামছিলো সাইডে

হন্তদন্ত ঠ্যাংগুলি হাঁটতেছিলো…

গাছটার ছায়া নিরব হয়া আসতেছিলো
একটা টি-স্টলের কাছে

আমাদের নিরবতাগুলি নিরবতার ভিতর দিয়া নিরবতার সাথে কথা কইতেছিলো

একটা সময় ঘুমায়া পড়লো অরাও…

চড়ুইগুলি ডাকতেছিলো একটু পরে পরে

স্বপ্নে? নাকি বাস্তবে?
আমি মনে-ই করতে পারতেছিলাম না

  Continue reading

কবিতা: জানুয়ারি – ফেব্রুয়ারি, ২০২০

মন-খারাপ

মন-খারাপ’টারে পকেটে নিয়া ঘুরতে বাইর হইলাম;

বাইর হয়া দেখি, আরে, পকেট’টাই তো নাই!

মন-খারাপের মতন আরো কতোকিছুই যে আসলে নাই, এই দুনিয়ায়

 

আমরা হাঁটতেছি

শোনো মদ, মাতাল হইতে যাও!
আমরা হাঁটতেছি, তাউরাইতেছি একটু একটু

দুপুরবেলার রইদ শরমাইতেছে,
লেকের পাড়ে গাছগুলা
দুলতেছে একটু একটু

‘হেই, হেই!’ মাছেরা ডাকতেছে
‘আমাদের কাছেও একটু বসো!’

শীতের বাতাসের মতন আমরা আসছিলাম,
আর চলে যাইতেছি তো…

 

তোমার কথাগুলা আমি অনুবাদ করে দিতে চাই ২

যেই ভাষা মরে গেছে,
সেইখানে তুমি কই?
আমিও আছি নাকি? পারবো থাকতে, কোনদিন?

তুমি,
একটা ভাষা থিকা আরেকটা’তে যাও
একটা বাসা থিকা আরেকটা বাসায়
একটা পাড়া থিকা আরেকটা পাড়ায়
একটা শহর থিকা আরেকটা শহরে…

তোমার ডানার নিচে বাতাস হইতে চায়া আমি
একটা টাইম থিকা খালি যাইতে থাকি আরেকটা টাইমের দিকে

ফারাক অইটুক থাকেই আসলে, সবসময়…

তুমি বললা তখন, “ও, বুঝছি
ট্রান্সলেশন!”

প্রুফ রিডিং

আমি তোমার ছোট্ট একটা বানান-ভুল
তুমি বারবার দেখতেছো, অথচ
চোখে পড়তেছে না,
মনে মনে খচখচ করতেছে –
কি জানি ভুল, কি জানি ভুল…

আমি তোমার কথা-বলার ভিতর
একটা উচ্চারণের ভুল
তুমি ভাবতেছো, ঠিকই তো আছে! অথচ
আমি বইসা আছি তোমার ঠোঁটের আগায়,
আল-জিবের ভিতরে,আত্মার ভিতরে একটা দম

আমি তোমার সমস্ত জীবন, ছোট্ট একটা ভুল
তোমার সাথে সাথে আছি, থাকতেছি…

যেই দিন তুমি থাকবা না, হারায়া যাবো তো
আমিও, তোমার না-থাকার ভিতর
Continue reading