প্রেমো-লেজে লাজে মরি

লেনজা আমি কুথাই লুকাই?

যেইখানে যাই, যেইদিক তাকাই

তোমা বিনা কেন হরি,

কিছুই হেরি না হেথায়?

 

লেনজা ফেইলা দিলেও আমার

সাথে সাথে কে আসে? যায়?

 

শেয়াল-গন্ধ রাতের ভিতর

ওগো অন্ধ, জাগিও না আমায়!

Continue reading

প্রেমের প্রমাণ

3452f22ff55573bcb01d5f8e7efff76e

প্রেমের ত কোন প্রমাণ নাই, যেমন পাহাড়-পর্বত আছে, দেখা যায়। যা যা কিছু ঘটতে পারতো এবং যা যা কিছু ঘটে নাই, তারেই প্রেম বলা যাইতে পারে বরং। তাই কয়েকটা ঘটনার কথাই বলি যেইখানে পাহাড় সমান প্রেম বর্তমান।  

নমুনা যখন আন্দোলনরে লিড দিতেছে, তখন দেখি লিবাও আছে সেই পাবলিক জমায়েতে। আমি দূর থিকা বইসা দেখতেছিলাম। যাওয়ার সময় লিবা আইসা কইলো, ‘তুমি যে অত পাদ-ডরাইলা মানুষ এইটা ত জানতাম না!’, আমি কইলাম, ‘দেহ, এইটাতে ত আমার কোন স্ট্যান্ড নাই, এইটা মোল্লাবাড়ি আর খাঁবাড়ি’র মানুষের ইন্টারনাল ঝামেলা। আমি কারো পক্ষ কেন নিবো?’ লিবা কইলো, ‘এইটা মোল্লাবাড়ি আর খাঁবাড়ির ব্যাপার না, স্কুলের ব্যাপার…’ – এইরকম চলতেই থাকলো, দুপুরের পর থিকা সন্ধ্যার অন্ধকার পর্যন্ত। হায় প্রেম! হায় তার্কিকতা!

Continue reading

ইয়াং কবিদেরকে কয়েকটা পরামর্শ

young-poets-2

১. বাক্যের ভিতর চমকাইয়া দেয়ার ক্ষমতারেই যারা কবিতা ভাবেন, তাদের কবিতা পইড়েন না। কবিতা ভাষার ভিতর দিয়াই লেখা হয়, কিন্তু ভাষার কসরতই কবিতা না।

২. তত্ত্ব-চিন্তা দিয়া কবিতা লেখা হয় না। কবিতার ভিতরে তত্ত্ব-চিন্তারে গুরুত্ব দিয়েন না। যাঁরা গুরুত্ব দিতে চান, তাঁদের কবিতার পছন্দরে সবসময়ই সন্দেহের ভিতর রাইখেন।

৩. কবি হইতে হইলে কারো সাথে বইসা মদ খাওয়াটা জরুরি না।

৪. আগে-যারা-কবিতা-লিখতেন-কিন্তু-এখন-লিখেন-না সেইসব মানুষদের সাথে মিইশেন না। Continue reading